আক্কেলপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাজে বাঁধা দেওয়ায় ইউপি সদস্যের কারাদণ্ড


resma প্রকাশিত: ৭:৪৪ অপরাহ্ণ ১৭ জুন , ২০২২
আক্কেলপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাজে বাঁধা দেওয়ায় ইউপি সদস্যের কারাদণ্ড

নিরেন দাস, জয়পুুরহাট প্রতিনিধি: জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় ইউএনওর সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করাসহ আদালতের কাজে বাঁধা দেওয়ায় মুক্তার হোসেন (৩৬) নামের স্থানীয় এক ইউপি সদস্যকে দুই মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বিকেলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আক্কেলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এস.এম হাবিবুল হাসান এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত মুক্তার হোসেন উপজেলার রায়কালী ইউপির খাঁ পাড়া গ্রামের মৃত.হাফেজ উদ্দীনের ছেলে ও রায়কালী ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে নির্বাহী অফিসার এস.এম হাবিবুল হাসান রায়কালী বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছিলেন। এসময় ইউপি সদস্য মুক্তার হোসেন হঠাৎ হাজির হয়ে আদালত পরিচালনা কাজে বাঁধা দেওয়ার পাশাপাশি ইউএনওর সঙ্গে উত্তেজিত কন্ঠে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। তার আচরণে ভ্রাম্যমাণ আদালত তৎক্ষণাৎ তাকে দুই মাসের কারাদণ্ড প্রদান করলে পুলিশ তাকে আটক করে জয়পুুরহাট জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেয়।

এবিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আক্কেলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম হাবিবুল হাসান জানানন, বৃহস্পতিবার বিকেলে রায়কালী বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছিলাম। এসময় হঠাৎ করে ইউপি সদস্য মুক্তার হোসেন এসে হাজির হয়ে সরকারি কাজে বাঁধা দেন এবং আমার সঙ্গে উচ্চ কন্ঠে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এর ফলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে দুই মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

পরে আক্কেলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সাইদুর রহমান জানান,সরকারি কাজে বাঁধা দেওয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৪ নম্বর ইউপি সদস্য মুক্তার হোসেনকে দুই মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। পুলিশ তাকে আটক করে বিকেলে সাজাভোগের জন্য জেলা কারাগারে সোপর্দ করা হয়েছে। ওসি আরও জানান সাজাপ্রাপ্ত ইউপি সদস্য মুক্তার হোসেনের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রী অপহরণেরও একটি মামলা হয়েছিল। সে আগে থেকেই বিভিন্ন অপকর্ম কাজে লিপ্ত ছিলেন বলেও ওসি জানান।