ইচ্ছা শক্তির কাছে প্রতিকূলতার হার


resma প্রকাশিত: ৫:১০ অপরাহ্ণ ৯ মার্চ , ২০২২
ইচ্ছা শক্তির কাছে প্রতিকূলতার হার

আজ জানবো হার না মানা একজন কর্মবীরের কথা। যার শৈশব কেটেছে গ্রামে। লেখাপড়ার ইচ্ছা থাকলেও সংসারের টানাপোড়েনের কারণে লেখাপড়া খুব বেশিদুর এগোতে পারেননি। কিন্তুু তার সফল হওয়ার ইচ্ছাটা ছিল প্রবল। তাই কিশোর বয়সে গ্রাম ছেড়ে পাড়ি জমান শহরে । শুরু হয় সংগ্রামী জীবন । তিনি অত্যন্ত পরিশ্রমী ও কৌশলী। তাই সংগ্রামের পথে কোন কিছুই বাধা সৃষ্টি করতে পারেনি। তাঁর এই পরিশ্রম ও কৌশলের কারণে আজ তিনি একজন সফল ব্যবসায়ী। শুধু তাই নয় তিনি একজন আদর্শ বাবা ও আদর্শ স্বামীও বটে । বড় কোন ডিগ্রি না থাকলেও পরিশ্রম ও কৌশলের দ্বারা সফল হওয়া যায় এটা তার প্রমাণ। এমন অনেক কবি, লেখক, সাহিত্যক আছে যাদের উচ্চতর ডিগ্রি নেই। কিন্তুু তারা সফল হয়েছেন। তেমনি সফল হয়েছেন আমাদের কর্মবীর মো. ইস্রাফিল হোসেন। তার সফল সংগ্রামের গল্প শুনিয়েছেন ইতিহাস প্রতিদিনের রেশমাকে।

ইতিহাস প্রতিদিন: অভিনন্দন এই অভূতপূর্ব সফলতার জন্য। এই সফলতার কারণ কি বলে মনে করেন?

ইস্রাফিল: পরিশ্রম, কৌশল ও ধৈর্যের মাধ্যমেই আমি এই পর্যন্ত আসতে পেরেছি।

ইতিহাস প্রতিদিন: আমরা জানি অনেক সমাজ সেবায় সামর্থ অনুযায়ী অংশ গ্রহণ করেন। সমাজ সেবার এই মহান কী সংগ্রামী জীবনেরই অংশ?

ইস্রাফিল: জীবন সংগ্রামে অসহায় মানুষের নিজ চোখে অবলোকন করেছি। তাই তাদের দুঃখ দুর্দশাই পাশে থাকতে চাই। গ্রামে মানুষ এখনো অনেক ক্ষেত্রেই দুঃখ দুর্দশাগ্রস্ত। তাদের পাশে থাকতে পারলে আত্মিক শান্তি পাই।

ইতিহাস প্রতিদিন: শুনেছি আপনার স্ত্রী সরকারি চাকরি করেন। সফলতার পেছনে আপনার স্ত্রীর আবদান কতটুকু বলে মনে করেন?

ইস্রাফিল: আমার সফলতার পিছনে আমার স্ত্রীর ভূমিকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তার দিক নির্দেশনা, পরামর্শ, সহযোগিতাই আজ আমি এখানে। মানুষ হিসাবে সে সাহসিকতা ও পরিশ্রমের মুর্ত প্রতীক।

ইতিহাস প্রতিদিন: আপনার এই সফলতার জন্য ইতিহাস প্রতিদিনের পক্ষ থেকে শুভকামনা। আপনি সামনে আরো এগিয়ে যান এই আশা ইতিহাসের পরিবারের।

ইস্রাফিল: আমার সংগ্রামী জীবনের কথা তুলে ধরার জন্য ইতিহাস প্রতিদিনকে অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞা।