এবার রাশিয়ার শীর্ষ কর্মকর্তাদের ওপর অস্ট্রেলিয়ার নিষেধাজ্ঞা


asif প্রকাশিত: ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ ২৩ ফেব্রুয়ারি , ২০২২
এবার রাশিয়ার শীর্ষ কর্মকর্তাদের ওপর অস্ট্রেলিয়ার নিষেধাজ্ঞা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাশিয়ার অগ্রহণযোগ্য ইউক্রেন আগ্রাসনের পর বুধবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) তারা এমন পদক্ষেপ নিল।ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে ক্রেমলিন সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পক্ষে সৈন্য মোতায়েনে পুতিনের সিদ্ধান্তের পর প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এ নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দেন। এক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য মিত্র দেশ প্রায় একই ধরনের সিদ্ধাসন্ত গ্রহণ করে।

রাশিয়ার নিরাপত্তা পরিষদের আট সদস্য নিষেধাজ্ঞা ভোগ করবে। তাদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করা হয়েছে।অস্ট্রেলিয়া সামরিক সংশ্লিষ্ট রাশিয়ার বিভিন্ন ব্যাংক লক্ষ্য করে পদক্ষেপ নেবে।

মরিসন বলেন, তারা ভাড়াটে গুন্ডা ও উৎপীড়কের মতো আচরণ করছে। পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তারা পুরোদমে আগ্রাসন চালানো শুরু করতে পারে বলে ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।অস্ট্রেলিয়া ফাইভ আইজ ইন্টেলিজেন্স-শেয়ারিং ব্লকের সদস্য দেশ। এ ব্লকে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, কানাডা ও নিউজিল্যান্ড রয়েছে।

মরিসন বলেন, অস্ট্রেলিয়া উৎপীড়ন দমনে সর্বদা প্রস্তুত থাকবে।

এর আগে রাশিয়ার পাঁচটি ব্যাংকের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাজ্য। ব্যাংক ৫টি হলো- রোসিয়া, আইএস ব্যাংক, জেনারেল ব্যাংক, প্রোমসভায়াজ ব্যাংক এবং ব্ল্যাক সি ব্যাংক। খবর বিবিসি বাংলার।খবরে বলা হয়েছে, এগুলো রাশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ব্যাংক।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে এই নিষেধাজ্ঞা জারির ঘোষণা করেন।সেই সঙ্গে গেনেডি তিমচেনঙ্কো, বরিস রোটেনবার্গ এবং ইগোর রোটেনবার্গ নামে রাশিয়ার তিন ব্যক্তির সব সম্পদের ওপরেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যে থাকা তাদের সকল সম্পদ জব্দ অবস্থায় থাকবে। তারা যুক্তরাজ্যে যাতায়াত করতে পারবেন না। যুক্তরাজ্যের কোনো নাগরিক তাদের সঙ্গে ব্যবসাবাণিজ্য করতে বা সম্পর্ক রাখতে পারবেন না।