কুসিক নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে: সিইসি


resma প্রকাশিত: ৬:৪২ অপরাহ্ণ ১৫ জুন , ২০২২
কুসিক নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে: সিইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক: কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। বুধবার (১৫ জুন) বিকেলে ভোটগ্রহণ শেষে এ কথা জানান তিনি।

এ সময় সিইসি বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সুষ্ঠুভাবে, শান্তিপূর্ণভাবে এবং কোনোরকম সংঘর্ষ ছাড়াই শেষ হয়েছে। বৃষ্টিপাতের কারণে দুটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণে বিঘ্ন ঘটেছে। এ ছাড়া আমাদের প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, প্রায় ৬০ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়েছে। ইভিএমের মাধ্যমে ভোট হয়েছে।

কাজী হাবিবুল আউয়াল আরও বলেন, আমরা ইভিএমের ব্যাপারে দেখেছি বেশ ভালোভাবেই ভোট সম্পন্ন হয়েছে। কেউ কেউ ইভিএমের ব্যাপারে বলেছেন যে, তাদের একটু অসুবিধা হয়েছে। আমরা লক্ষ্য করেছি, যারা একটু বৃদ্ধ তাদের জন্য ইভিএমে একটু অসুবিধা হয়েছে। তবে সার্বিকভাবে ইভিএমে ভোটগ্রহণ ভালোই হয়েছে।

এর আগে বিকেল ৪টায় শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয় ভোটগ্রহণ। ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এদিন সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিরতিহীনভাবে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ভোটগ্রহণ শেষে চলছে গণনা। এরই মধ্যে ২৫টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। ফলাফলে ঘুড়ি প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুকে টপকে গেলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত। এসব কেন্দ্রে তিনি পেয়েছেন ১৫ হাজার ৯৯০ ভোট। তার বিপরীতে মনিরুল হক সাক্কু পেয়েছেন ১৩ হাজার ৮৭০ ভোট।

কুমিল্লা সিটির পাশাপাশি পাঁচটি পৌরসভা, চারটি উপজেলা পরিষদ এবং দেড় শতাধিক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। সকাল থেকেই ভোটাররা কেন্দ্রে আসতে শুরু করেন। তবে কুমিল্লার বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, পুরুষের চেয়ে নারী ভোটারের উপস্থিত বেশি। নির্বাচন চলাকালে কোথাও বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি।

সারা দেশের দৃষ্টি এখন কুসিক নির্বাচনের দিকে। কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশনের অধীনে প্রথম নির্বাচন এটি। তাই নির্বাচনে কোনো ধরনের ফাঁক রাখতে চাচ্ছে না কমিশন। যেকোনো নির্বাচনের তুলনায় বেশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

এবার নির্বাচনে পাঁচজন মেয়রপ্রার্থী রয়েছেন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত, মনিরুল হক সাক্কু (স্বতন্ত্র), মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন কায়সার (স্বতন্ত্র), ইসলামী আন্দোলনের মো. রাশেদুল ইসলাম এবং কামরুল আহসান বাবুল স্বতন্ত্র প্রার্থী। মেয়র প্রার্থী ছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১০৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে সব কিছুই করা হয়েছে। কুমিল্লা জেলা ও পুলিশ প্রশাসন যথেষ্ট তৎপর। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো শঙ্কার কারণ নেই।

রিটার্নিং কর্মকর্তার দফতর সূত্রে জানা গেছে, এবার নির্বাচনে মোট ভোটার দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৯২, পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। আর দুজন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার।

মোট ১০৫টি কেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।