কোভিড নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ এখন শীর্ষ অবস্থানে : স্বাস্থমন্ত্রী


yousuf প্রকাশিত: ২:২৮ অপরাহ্ণ ২৭ ফেব্রুয়ারি , ২০২২
কোভিড নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ এখন শীর্ষ অবস্থানে : স্বাস্থমন্ত্রী

আব্দুর রব আসিফ মিয়া : স্বাস্থমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, কোভিড নিয়ন্ত্রণে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ এখন শীর্ষে। কোভিডে বাংলাদেশে এখন ভালো অবস্থানে আছে, এটা ধরে রাখতে হবে। একদিনে আর কোন দেশ এতো পরিমাণে টিকা দিতে পেরেছে কি-না সেটা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান স্বাস্থ খাতে যে কাজ করে গিয়েছে তা অতুলণ্য। তার সময়ে বিভিন্ন হাঁসপাতাল তৈরি হেয়েছে যেমন: পঙ্গু হাঁসপাতাল, চক্ষু হাঁসপাতাল ইত্যদি। তার সময়ে ৩৫০ টি কম্পলেস্ক ১৪০০ হাজার ক্লিনিংক।

রোববার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৪২তম বিসিএস  স্বাস্থ্য ক্যাডারে নব নিয়গপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের পাওয়া ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, শনিবার সব মিলেয়ে আমরা এক কোটি ২০ লাখ মানুষকে টিকা দিতে পেরেছি। এর মধ্যে এক কোটি ১১ লাখ লোককে দেওয়া হয়েছে প্রথম ডোজ। বাকিদের দ্বিতীয় ডোজ। মোট জনসংখ্যার ৭৩ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী আরও ব‌লেন, গত পাঁচ বছ‌রে ১৫ হাজার চি‌কিৎসক ও ২০ নার্স নি‌য়োগ দেওয়া হ‌য়ে‌ছে। এনথিওল‌জিস্ট ও ল‌্যাব টেক‌নেশিয়ান নি‌য়োগ দেওয়া হ‌বে।

তিনি বলেন, সেবার মূল শক্তি ডাাক্তার নার্স। গত ৫ বছরে দেশে ১৫ হাজার ডাক্তার ও ২০ হাজার নার্চ নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে ৪টি মেডিকেল হাঁসপাতাল এর কাজ চলছে। বাংলাদেশে বর্তমান ১১০ টি মেডিকেল হাসপাতাল আছে। এর মধ্যে ৬০০০ হাজার বেড রযেছে। গতকাল শনিবার এক কোটি টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও প্রায় এক কোটি ১২ লাখ মানুষকে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়। আর প্রথম, দ্বিতীয় ও বুস্টার মিলিয়ে একদিনেই প্রয়োগ হয় এক কোটি ২০ লাখ টিকা।

তিনি বলেন: MDGC এওয়ার্ড পেয়েছে বাংলাদেশ। বিশ্ব নারী ও শুশিু মৃত্য হার কমছে ১৩০ থেকে ৩২ জন। মা মৃত্য কমছে ৬০০ থেকে ১৩৫ জন।

গতকালের কার্যক্রমে প্রধানমন্ত্রী খুশি হয়ে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সবমিলে গতকাল এ পর্যন্ত মোট ২০ কোটি ৫০ লাখ ডোজ টিকা দেয়া হয়েছে।স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা এখন মোট জনসংখ্যার ৭৩ শতাংশ ও টার্গেট জনগোষ্ঠীর প্রায় শতভাগ মানুষকে টিকার আওতায় আনতে পেরেছি। গণটিকা কার্যক্রম আরও দুই দিন চলমান থাকবে।

গতকালের কার্যক্রমে প্রধানমন্ত্রী খুশি হয়ে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বলেও জানান তিনি। বলেন, ‘সবমিলে গতকাল পর্যন্ত মোট ২০ কোটি ৫০ লাখ ডোজ টিকা দেয়া হয়েছে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এখন মোট জনসংখ্যার ৭৩ শতাংশ ও টার্গেট জনগোষ্ঠীর প্রায় শতভাগ মানুষকে টিকার আওতায় আনতে পেরেছি। গণটিকা কার্যক্রম আরও দুই দিন চলমান থাকবে। এরপরও প্রথম, দ্বিতীয় ও বুস্টার ডোজ কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চলতে থাকবে।’

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব সাইফুল ইসলাম বাদল, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ)-এর সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, মহাসচিব ডা. এহতেশামুল হক চৌধুরী, স্বাচিপ-এর সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান, মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহসহ অন্যান্য বক্তাগণ।