খুলনায় পয়ঃনিষ্কাশন উন্নয়নের কাজ পেলো বাংলাদেশ-ভারতের ২ প্রতিষ্ঠান


sraboni প্রকাশিত: ৬:২৩ অপরাহ্ণ ১৫ জুন , ২০২২
খুলনায় পয়ঃনিষ্কাশন উন্নয়নের কাজ পেলো বাংলাদেশ-ভারতের ২ প্রতিষ্ঠান

নিজস্ব প্রতিবেদক: ৪২৬ কোটি ৭১ লাখ টাকা ব্যয়ে খুলনার পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা উন্নয়নের কাজ পেয়েছে বাংলাদেশ ও ভারতের দুই প্রতিষ্ঠান।বুধবার (১৫ জুন) দুপুরে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে এ প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আজ অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ১৪তম এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ১৯তম সভা হয়েছে। অর্থনৈতিক কমিটির অনুমোদনের জন্য একটি ও ক্রয় কমিটির অনুমোদনের জন্য ১৭টি প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়েছে। ক্রয় কমিটির প্রস্তাবগুলোর মধ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের চারটি, কৃষি মন্ত্রণালয়ের তিনটি, স্থানীয় সরকার বিভাগের দুটি, জননিরাপত্তা বিভাগের দুটি, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দুটি, শিল্প মন্ত্রণালয়ের একটি, সেতু বিভাগের একটি, বিদ্যুৎ বিভাগের একটি এবং গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের একটি প্রস্তাব ছিল। এর মধ্যে ক্রয় কমিটি ১৩টি প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে। অনুমোদিত প্রস্তাবের মোট অর্থের পরিমাণ দুই হাজার ১৯৪ কোটি ৪৬ লাখ ৪৬ হাজার ৮৩০ টাকা। মোট অর্থায়নের মধ্যে জিওবি থেকে ব্যয় হবে ৬৭৩ কোটি ১৫ লাখ ৭০ হাজার ৬৮২ টাকা এবং দেশীয় ব্যাংক ও বৈদেশিক অর্থায়ন এক হাজার ৫২১ কোটি ৩০ লাখ ৭৬ হাজার ১৪৮ টাকা।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন খুলনা ওয়াসা কর্তৃক ‘খুলনা পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা উন্নয়ন’ প্রকল্পের কাজ যৌথভাবে ভারতের ত্রিবেণীর একটি এবং বাংলাদেশের একটি মিলের কাছ থেকে ৪২৬ কোটি ৭১ লাখ ৯৪ হাজার ৯৪৮ টাকায় ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।বৈঠকে অনুমোদিত অন্য প্রস্তাবগুলো হলো

স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) ‘পল্লি সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পের আওতায় জামালপুর জেলার সদর উপজেলায় ব্রহ্মপুত্র নদীর ওপর ৬০৬ মিটার সেতুর নির্মাণকাজ মেসার্স চৌধুরী এন্টারপ্রাইজের কাছ থেকে ১০৬ কোটি ৮২ লাখ সাত হাজার ৩৫১ টাকায় ক্রয়।

জননিরাপত্তা বিভাগের অধীন পুলিশের ‘র্যাবের কারিগরি ও প্রযুক্তিগত সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ’ প্রকল্পের আওতায় কম্পিউটার সার্ভিস লিমিটেডের কাছে থেকে ৪৯ কোটি ২২ লাখ ৭০ হাজার ৯৬০ টাকায় একটি জিএসএম ইউএমটিএস যানবাহন সক্রিয় সমর্থন সিস্টেম ক্রয়।এছাড়া জননিরাপত্তা বিভাগের অধীন পুলিশের ‘র্যাব ফোর্সেসের আভিযানিক সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ’ প্রকল্পের আওতায় দুই হাজার ৭০০ সিসির ৩০টি জিপ প্রগতি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের কাছ থেকে ২৮ কোটি ২০ লাখ টাকায় ক্রয়।