চলতি মাসেই নতুন এমপিওভুক্তির ঘোষণা


resma প্রকাশিত: ৯:৪১ পূর্বাহ্ণ ৪ মার্চ , ২০২২
চলতি মাসেই নতুন এমপিওভুক্তির ঘোষণা

বিশেষ প্রতিবেদক : নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা চলতি মাসেই আসবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।বৃহস্পতিবার এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশেন, বাংলাদেশ- ইরাব’র সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে একথা জানান তিনি।  মন্ত্রী বলেন, খুব দ্রুত আমরা এমপিওভুক্তির কাজ করব। এ মাসের মধ্যেই। মহামারী পরিস্থিতির উন্নতিতে প্রাথমিকে পুরোদমে ক্লাস শুরুর পর এখন মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও প্রতিদিন ক্লাস শুরু করার কথা ভাবা হচ্ছে বলে মতবিনিময়কালে জানান শিক্ষামন্ত্রী।

দীপু মনি বলেন, আমরা মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের শ্রেণি কার্যক্রমও স্বাভাবিক করতে চাই। তবে এক্ষেত্রে কিছু বিষয় নিয়ে ভাবছি আমরা। আমাদের অনেক বড় বড় স্কুলে এক ক্লাসে অনেক শিক্ষার্থী। সব শ্রেণির শিক্ষার্থীরা যখন একসাথে স্কুলে আসবে, তখন সেখানে জটলা হবে। এ কারণেই বিষয়টি নিয়ে ভাবছি আমরা। গত বছরের ১০ থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত এমপিওভুক্তির জন্য অনলাইনে আবেদন নেওয়া হয়। তাতে নিম্ন মাধ্যমিক স্কুল, মাধ্যমিক স্কুল, উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ ও ডিগ্রি কলেজ মিলিয়ে সাড়ে চার হাজারের বেশি আবেদন পড়েছে। এছাড়া প্রায় চার হাজার মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আবেদন করেছে।

নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা চলতি মাসেই আসবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।বৃহস্পতিবার এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশেন, বাংলাদেশ- ইরাব’র সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে একথা জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, খুব দ্রুত আমরা এমপিওভুক্তির কাজ করব। এ মাসের মধ্যেই।মহামারী পরিস্থিতির উন্নতিতে প্রাথমিকে পুরোদমে ক্লাস শুরুর পর এখন মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও প্রতিদিন ক্লাস শুরু করার কথা ভাবা হচ্ছে বলে মতবিনিময়কালে জানান শিক্ষামন্ত্রী।

দীপু মনি বলেন, আমরা মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের শ্রেণি কার্যক্রমও স্বাভাবিক করতে চাই। তবে এক্ষেত্রে কিছু বিষয় নিয়ে ভাবছি আমরা। আমাদের অনেক বড় বড় স্কুলে এক ক্লাসে অনেক শিক্ষার্থী। সব শ্রেণির শিক্ষার্থীরা যখন একসাথে স্কুলে আসবে, তখন সেখানে জটলা হবে। এ কারণেই বিষয়টি নিয়ে ভাবছি আমরা।

গত বছরের ১০ থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত এমপিওভুক্তির জন্য অনলাইনে আবেদন নেওয়া হয়। তাতে নিম্ন মাধ্যমিক স্কুল, মাধ্যমিক স্কুল, উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ ও ডিগ্রি কলেজ মিলিয়ে সাড়ে চার হাজারের বেশি আবেদন পড়েছে। এছাড়া প্রায় চার হাজার মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আবেদন করেছে।