চ্যাম্পিয়নস লীগের শেষ আটে এক পা চেলসির


rupali প্রকাশিত: ৮:১২ পূর্বাহ্ণ ২৩ ফেব্রুয়ারি , ২০২২
চ্যাম্পিয়নস লীগের শেষ আটে এক পা চেলসির

ক্রীড়া ডেস্ক: টমাস টুখেলের জাদুর স্পর্শে বদলে গেছে চেলসি। গত মৌসুমে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজের দলটির দায়িত্ব নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লীগ শিরোপা জিতিয়েছেন টুখেল। ইউরোপ সেরা টিম ব্লুজ গত প্রিমিয়ার লীগের রানার্সআপ। এবার দারুণ ছন্দে রয়েছে চেলসি। কদিন আগেই ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তুলেছে লুকাকু-হ্যাভার্টজরা। চ্যাম্পিয়নস লীগেও দাপুটে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। শিরোপা ধরে রাখার মিশনে সবশেষ ম্যাচে লিলকে হারিয়েছে চেলসি। মঙ্গলবার ঘরের মাঠে ইউসিএলের শেষ ষোলোর প্রথ লেগে ২-০ গোলের জয় পায় চেলসি।

ম্যাচ হারলেও চেলসির মাঠে আক্রমণে এগিয়ে ছিল লিল। ৫১ শতাংশ বল দখলে রেখে ৯ শটের ৪টি লক্ষ্যে রাখে স্বাগতিকরা। আর ৪৯ শতাংশ বল দখলে রাখা লিল ১৫টি শটের ২টি রাখে লক্ষ্যে।

প্রিমিয়ার লীগে ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে ১-০ গোলের জয়ে ছন্দে ছিলেন না চেলসি স্ট্রাইকার রোমেলু লুকাকু। যে কারণে লিলের বিপক্ষে একাদশে সুযোগ হয়নি এই বেলজিয়ান তারকার। মূলত তিন মিডফিল্ডার হ্যাভার্টজ, পুলিসিক ও হাকিম জিয়াশকে নিয়ে আক্রমণ সাজান টুখেল। কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়ে হ্যাভার্টজ, পুলিসিক পান জালের দেখা আর জিয়াশ করেন একটি গোলে অ্যাসিস্ট।

ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ আসে চেলসির। কিন্তু সিজার আসপিলিকুয়েতার ক্রস ছয় গজ বক্সের মুখে পেয়ে ক্রসবারের ওপর দিয়ে পাঠান হ্যাভার্টজ। তিন মিনিট পর ডি-বক্সে একজনকে কাটিয়ে এই জার্মান মিডফিল্ডারের আরেক শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান গোলরক্ষক।

অষ্টম মিনিটে আর ব্যর্থ হননি হ্যাভার্টজ। জিয়াশের কর্নারে দারুণ হেডে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ২২ বছর বয়সী মিডফিল্ডার। ৬৩তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন পুলিসিক। এনগোলো কন্তের রক্ষণচেরা পাস ডি-বক্সে দুই ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে জায়গা বানিয়ে নিচু শটে গোলটি করেন যুক্তরাষ্ট্রের এই মিডফিল্ডার।

২০২০-২১ মৌসুমের শুরু থেকে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে এই নিয়ে মোট ১৪ ম্যাচে জাল অক্ষত রাখল চেলসি। যে কোনো দলের মধ্যে যা সর্বোচ্চ।

আগামী ১৭ই মার্চ লিলের মাঠে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচ খেলবে চেলসি।