দেশের মানুষের সেবায় নিয়োজিত থাকাতে চাই : ডা. লিখন


sujon প্রকাশিত: ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ ২৮ ফেব্রুয়ারি , ২০২২
দেশের মানুষের সেবায় নিয়োজিত থাকাতে চাই : ডা. লিখন

আব্দুর রব : প্রধানমন্ত্রী যে মিশন মানুষের দ্বারপ্রান্তে স্বস্থ্য সেবা পৌঁছে দেবার যে লক্ষ্য ৪২তম বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগ পাওয়া চিকিৎসকদের মাধ্যমে বাস্তাবায়ন করা সম্ভব। এর আগে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের সুপারিশ পাওয়া ৩ হাজার ৯৫৭ জন চিকিৎসককে নিয়োগ দেওয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৪২তম বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগ পাওয়া চিকিৎসকদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামের আয়োজন করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণলয়।

 

৪২তম বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগ পাওয়া চিকিৎসকদের অনুভূতি জানাতে চাইলে ইতিহাস প্রতিদিনকে ডা. লিখন বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে মিশন মানুষের দ্বারপ্রান্তে স্বস্থ্য সেবা পৈাছে দেবার যে লক্ষ্য সেটা ৪২তম বিসিএসের যোগদানকৃত চিকিৎসাকগণের মাধ্যমে সেটা বাস্তাবায়ন করা সম্ভব হবে। সরকার এই খাতকে শক্তিশালী করার জন্য বিপুল সংখ্যক ডাক্তার ৪২তম বিসিএসের চূড়ান্ত পর্যায়ে নব্য নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসাকদের যোগদানের মাধ্যমে দেশের নাগরিকেরা খুব সহজেই স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। এর ফলে স্বাস্থ্যখাতে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। নব্য নিয়গপ্রাপ্ত ডাক্তারদের যোগদানে স্বাস্থ্যখাত আরো গতিশীল করবে।

 

লিখন আরও বলেন, আমি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানাই এই কোভিড মাহামারির মধ্যেও এত সুন্দর প্রোগাম করে আমাদের বরণ করে সুন্দর দিক নির্দেশনা দেওয়ার জন্য। স্বাস্থ্য মন্ত্রণলয়ের কর্মকর্তাগণের নির্দেশনায় নিজ নিজ কর্মস্থলে গিয়ে অসহায় ও দরিদ্র মানুষের সেবায় নিয়োজিত থাকাতে চাই।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

 

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ৪২তম বিশেষ বিসিএস-এর মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের সুপারিশক্রমে তিন হাজার ৯৫৭ জন প্রার্থীকে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের স্বাস্থ্য ক্যাডারের প্রবেশ পদে (সহকারী সার্জন) নিয়োগ দেওয়া হলো।

 

জাতীয় বেতনস্কেল ২০১৫ অনুসারে ২২০০০-৫৩০৬০ বেতনক্রমে তাদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয় প্রজ্ঞাপনে।

 

কোভিড মহামারি প্রেক্ষাপটে দুই হাজার চিকিৎসককে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ দিতে ২০২০ সালে ৪২তম বিশেষ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। ২০২১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ৩১ হাজার চিকিৎসক অংশ নেয়। পরীক্ষার এক মাস পর ২৯ মার্চ এই বিসিএসের ফল প্রকাশ করে পিএসসি। এতে উত্তীর্ণ হন ৬ হাজার ২২ জন। সেখান থেকেই মেধা ক্রমানুসারে প্রায় ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের তালিকা প্রকাশ করে পিএসসি।