দেশে এখন ‘ভয় ও লোভের’ রাজত্ব চলছে: সেলিম


sraboni প্রকাশিত: ৭:২৩ অপরাহ্ণ ২৫ ফেব্রুয়ারি , ২০২২
দেশে এখন ‘ভয় ও লোভের’ রাজত্ব চলছে: সেলিম

নিজস্ব প্রতিবেদক:  বাম-গণতান্ত্রিক বিকল্প শক্তিকে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করার সময় এসেছে বলে মন্তব্য করছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর গুলিস্তানে মহানগর নাট্যমঞ্চে সিপিবির দ্বাদশ কংগ্রেসের উদ্বোধনী অধিবেশনে তিনি এ কথা বলেন।

মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ক্ষমতাসীনরা আজ জনসমর্থন হারিয়েছে। অথচ গোষ্ঠীগত লুটপাটের স্বার্থে এবং কৃত অপরাধের বিচার থেকে রেহাই পেতে তারা জোরপূর্বক ক্ষমতা দখল করে রেখেছে। জনসমর্থনের বদলে, এমনকি দলীয় রাজনৈতিক শক্তির ওপর নির্ভর করার বদলে, প্রধানত আমলাতন্ত্রসহ রাষ্ট্রযন্ত্রকে অবলম্বন করে তারা ক্ষমতা কুক্ষিগতের প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা করেছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসহ নানা কালাকানুন জারি করে মানুষের কণ্ঠ স্তব্ধ করে রাখার চেষ্টা চলছে। গুম, খুন, জেল, জুলুমের সন্ত্রাসী শাসন কায়েম করা হয়েছে। দেশে এখন ‘ভয় ও লোভের’ রাজত্ব চলছে।

তিনি বলেন, সামরিক কর্তৃত্বকে রক্ত দিয়ে প্রতিহত করে আমরা গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করেছিলাম। সেই গণতন্ত্রকে আজ হরণ করা হয়েছে। জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করা হয়েছে। সাম্প্রদায়িকতা, সাম্রাজ্যবাদ, লুটপাটতন্ত্র ও গণতন্ত্রহীনতা জনগণের সামনে এখন এই চারটি প্রধান বিপদ। সমাজ ও রাজনীতিতে বিকল্প বাম-গণতান্ত্রিক শক্তির সংগ্রামী ও কার্যকর ভূমিকা নিশ্চিত করা আজ জরুরি কর্তব্য। আজ সময় এসেছে বাম-গণতান্ত্রিক বিকল্প শক্তিকে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করার কাজটিকে সুনির্দিষ্টভাবে ও গুরুত্বের সঙ্গে হাতে নেওয়ার।

উদ্বোধনী অধিবেশনে আরও বক্তব্য রাখেন উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খান, সহিদুল্লাহ চৌধুরী, শাহাদাত হোসেন, নুরুল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম ও কংগ্রেস প্রস্তুতি কমিটির চেয়ারম্যান লক্ষ্মী চক্রবর্তী।

জেলা সম্মেলনে নির্বাচিত ৪৮৭ জন প্রতিনিধি এবং বিভিন্ন যোগ্যতায় নির্বাচিত পর্যবেক্ষকরা কংগ্রেসে অংশ নিচ্ছেন। কংগ্রেসে গত পাঁচ বছরের কর্মকাণ্ডের ওপর ‘কেন্দ্রীয় কমিটির রিপোর্ট’, পার্টির রণকৌশলগত দলিল অর্থাৎ কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক প্রণীত খসড়া ‘রাজনৈতিক প্রস্তাব’ এর ওপর আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।২৮ ফেব্রুয়ারি কংগ্রেসের শেষ অধিবেশনে আগামী ৪ বছরের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটি ও কন্ট্রোল কমিশন নির্বাচন করা হবে এবং জাতীয় পরিষদ ঘোষণা করা হবে।