বই মেলার ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে ক্লাউড সার্ভিস দিচ্ছে হুয়াওয়ে


meherin প্রকাশিত: ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ ৮ মার্চ , ২০২২
বই মেলার ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে ক্লাউড সার্ভিস দিচ্ছে হুয়াওয়ে

বিজ্ঞান ওপ্রযুক্তি:শীর্ষস্থানীয় আইসিটি প্রযুক্তি, সেবা ও অবকাঠামো প্রদানকারী হুয়াওয়ে ভার্চুয়াল অমর একুশে বইমেলা চালু করার জন্য বাংলা একাডেমিকে ক্লাউড সল্যুশন প্রদান করছে। এখন থেকে বইপ্রেমীরা বইমেলা সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য দেখতে পারবেন এই ওয়েবসাইটে।

১৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া অমর একুশে বইমেলা ২০২২ বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সংলগ্ন ভেন্যুতে চলবে আগামী ১৭ই মার্চ পর্যন্ত। বর্তমান পরিস্থিতির কথা আমলে নিয়ে, অমর একুশে বইমেলা ২০২২ উপলক্ষে বাংলা একাডেমি এই ওয়েবসাইটটি চালু করেছে যাতে করে দর্শক এবং আগ্রহী বইপ্রেমীরা ভার্চুয়ালি বইমেলা উপভোগ করতে পারেন এবং বইমেলা সম্পর্কিত তথ্য ও অন্যান্য সুবিধা পান। ওয়েবসাইটটির জন্য ক্লাউড সাপোর্ট দিচ্ছে হুয়াওয়ে আর ভার্চুয়াল প্লাটফর্মটি পরিচালনা করবে সিইএমএস।

এই নতুন সংযোজন আরও সহজে বইমেলার অভিজ্ঞতা নেয়ার সুযোগ করে দিবে। বইপ্রেমীরা এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বইমেলা, স্টল, বই, অনুষ্ঠান, কার্যক্রম এবং স্টলগুলোর অবস্থান সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাবেন www.amarekusheyboimela.gov.bd ওয়েবসাইটে। এছাড়া তথ্য সঞ্চয় করে রাখা, কোন স্টল কখন দেখতে যেতে চান তার সময় নির্ধারণ করা, প্রিয় লেখক কখন মেলায় আসবেন তা জানতে এবং স্টলের সাথে সরাসরি চ্যাটও করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক (ডিজি) কবি নুরুল হুদা বলেন, “পুরো দেশ ডিজিটাল সেবার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, এবং সরকার এই রূপান্তরের সাহায্যে এগিয়ে আসছে। তদানুসারে, বাংলা একাডেমি এই বছর অমর একুশে বইমেলার জন্য একটি ওয়েবসাইট চালু করেছে যাতে প্রত্যেকে বইমেলা বিষয়ক প্রয়োজনীয় তথ্য ডিজিটালভাবে অ্যাক্সেস করতে পারেন। এটাকে বাস্তবে রূপ দিতে প্রয়োজনীয় সহায়তা দেওয়ার জন্য আমি হুয়াওয়েকে ধন্যবাদ জানাই।”

“বরাবরই বাংলাদেশের আইসিটি সেক্টরের উন্নয়নে কাজ করছে হয়াওয়ে এবং হয়াওয়ে ক্লাউড প্ল্যাটফর্মের মতো বিশ্বের সবচেয়ে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি প্রবর্তনের মাধ্যমে দেশের সেবা করছে। আমাদের প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবে, অমর একুশে বইমেলা ভার্চুয়াল সাইটের সুবিধার্থে ক্লাউড পরিষেবা প্রদান করতে পেরে আমরা আনন্দিত। আমরা বিশ্বাস করি এই ওয়েবসাইট বইমেলায় একটি নতুন মাত্রা যোগ করবে এবং বাংলা একাডেমিকে নানাভাবে সাহায্য করবে।”, বলেন, হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের পাবলিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড কমিউনিকেশনস ডিপার্টমেন্টের পরিচালক, ইউয়িং কার্ল।

পুরো অভিজ্ঞতা পেতে এই ওয়েবসাইটে নিজের নাম, ঠিকানা, ইমেইল এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে যার জন্য কোন চার্জ হবে না। যে কোন বই অনলাইনে অর্ডার করার সুযোগও এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। তবে আপাতত ক্যাশ অন ডেলিভারি সুবিধা থাকলেও খুব শীঘ্রই অনলাইন পেমেন্ট সুবিধা সংযুক্ত হবে।

হুয়াওয়ে ক্লাউড ২০১৮ সালে বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করে এবং প্রাথমিকভাবে ই-গভর্নমেন্ট সেবা আনয়নে আইসিটি বিভাগকে সাহায্য করে যেখানে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের জন্য ১২০ টিরও বেশি অ্যাপ্লিকেশন নিশ্চিত করা হয়। পাশাপাশি মিডিয়া, ই-কমার্স, আইএসভি, ম্যানুফ্যাকচারিং ইন্ডাস্ট্রি এবং অন্য সকল গ্রাহকদের জন্য নির্ভরযোগ্য ও স্থানীয় পরিষেবাযুক্ত ক্লাউড সলিউশন প্রদান করে তাদের ডিজিটাল রূপান্তর সহজ এবং যুগোপযোগী করতে কাজ করে যাচ্ছে হুয়াওয়ে ক্লাউড।