বঙ্গবন্ধু দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় দেশ স্বাধীন করেছেন : শ ম রেজাউল করিম


sujon প্রকাশিত: ৯:১৬ অপরাহ্ণ ২৬ ফেব্রুয়ারি , ২০২২
বঙ্গবন্ধু দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় দেশ স্বাধীন করেছেন : শ ম রেজাউল করিম

পিরোজপুর প্রতিনিধি : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, “জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় গোটা জাতিকে প্রস্তুত করে দেশ স্বাধীন করেছেন। মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ হঠাৎ করে প্রস্তুত হয়নি। বঙ্গবন্ধু অধিকার বাঙালির আদায়ের সংগ্রামে আজীবন লড়াই করে গেছেন। তিনি পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে, শোষণের যাঁতাকল থেকে বাঙালি জাতিকে মুক্ত করেছেন।
শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) পিরোজপুরের নাজিরপুরে মালিখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন এবং মালিখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের বিদায় সংবর্ধনা উপলক্ষ্যে আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
তিনি অসাম্প্রদায়িক একটি আবাসভূমি তৈরি করেছেন। সেই বাংলাদেশ বিনির্মাণে যখন তিনি এগিয়ে চলছিলেন তখন তাঁকে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে স্বাধীনতার পরাজিত শত্রুরা প্রতিশোধ নিতে চেয়েছিল, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে আবার সাম্প্রদায়িক পাকিস্তান রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল”।
মালিখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রুহুল আমিন বাবলুর সভাপতিত্বে সভাপতিত্বে উন্নয়ন সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নাজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ আব্দুল্লাহ সাদীদ। নাজিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার শেখ আব্দুল লতিফ, পিরোজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি আখতারুজ্জামান ফুলু, পিরোজপুরের মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার গৌতম নারায়ণ রায় চৌধুরী, স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, মালিখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ, নাজিরপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
মন্ত্রী আরো বলেন, “বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাস না জানলে আমরা অসম্পূর্ণ। সন্তানদের আদর্শ শিক্ষার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের পূর্বের শিক্ষা, মুক্তিসংগ্রামের শিক্ষা এবং মুক্তিযুদ্ধ ও ত্যাগের শিক্ষা দিতে হবে। তা না হলে ওরা জানবে না কত ত্যাগের বিনিময়ে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ হয়েছে। ”
তিনি এসময় আরো বলেন, “বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বাংলাদেশকে কার্যত আবার পূর্ব পাকিস্তানে পরিণত করা হয়েছিল। সে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কবর রচনা করা হয়েছিল। ২১ বছর পর বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে আবার মুক্তিযুদ্ধের সরকার প্রতিষ্ঠা করেছেন। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে রায় কার্যকর করেছেন, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার করে রায় কার্যকর করেছেন, মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান দিয়েছেন। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি যাতে আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে সে পদক্ষেপ নিয়েছেন”।
এর আগে মন্ত্রী নাজিরপুরের মালিখালী ইউনিয়নে একদিনে এক কোটি কোভিড ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করেন। এ অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, “অনেক দেশে বিনামূল্যে করনোর টিকা দেয়া হয় না। অথচ বাংলাদেশের শেখ হাসিনা বিনামূল্যে টিকা প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছেন”।
শেখ হাসিনাকে পাওয়া সাম্প্রতিক বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি উল্লেখ করে এসময় মন্ত্রী আরো বলেন, “একজন শেখ হাসিনা আছেন বিধায় দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের উন্নয়ন হচ্ছে। যে শেখ হাসিনা করোনায় ধর্ম, বর্ণ, দল-মত নির্বিশেষে সবার কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেন। এরকম একজন মানবদরদী শেখ হাসিনা পেয়েছি বিধায় আমরা ভালো অবস্থায় আছি”।
এ অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরো যোগ করেন, “সম্মিলিতভাবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় শামিল হতে হবে। উন্নয়নের পথে যারা বাধা সৃষ্টি করে সে সব অপরাজনীতি করা মানুষদের থেকে দূরে থাকতে হবে, তাদের প্রতিহত করতে হবে। অপরাজনীতি করা মানুষরা জঙ্গি-সন্ত্রাস সৃষ্টি করে। এদের কেউ দেশের রাস্তা-ঘাট নষ্ট করে, আবার কেউ পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে আগুন সন্ত্রাস সৃষ্টি করে। সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, মাদকের বিস্তার, ইভটিজিং এসব কাজে জড়িতদের প্রতিহত করতে হবে।