বরগুনায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের খোঁজ-খবর নিল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান


sujon প্রকাশিত: ৫:৫২ অপরাহ্ণ ৯ মার্চ , ২০২২
বরগুনায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের খোঁজ-খবর নিল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

এম আর অভি, বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনা শহরের পশু হাসপাতাল সড়কে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়ে যাওয়া দোকানের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের খোঁজ-খবর নিয়েছেন বরগুনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. দেলোয়ার হোসেন।

বুধবার (০৯-মার্চ) সকালে জেলা-পরিষদে তার অফিস কক্ষে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যসায়ীদের সাথে তিনি কথা বলেন এবং তাদের খোঁজ-খবর নেন। এসময় চেয়ারম্যান ক্ষতিগ্রস্ত ব্যসায়ীদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন।

এর পূর্বে তিনি (৮ মার্চ) মঙ্গলবার দুপুরে অগ্নিকান্ডের ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে সহমর্মিতা জ্ঞাপন করে জেলা-পরিষদ চেয়ারম্যান। ক্ষতিগ্রস্তদের যে কোন ধরনের সহয়তার আশ্বাস দেন তিনি। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মনিরুল ইসলামসহ জেলা-পরিষদের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ।

সোমবার রাত পৌনে ১০টার দিকে লেপ তোষকের দোকান থেকে বিদ্যুতের শট সার্কিটে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এরই মধ্যে আগুনে পোল্টি ফিডসহ ৪টি ফার্মেসি, ১টি আবাসিক হোটেল, ৪টি লেপ তোষকের দোকান এবং হোমিও চেম্বার ও ফটোকপি এবং কম্পিউটারের দোকান পুড়ে যায়। ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট সহ স্বেচ্ছা সেবী সংগঠন ও সাধারণ মানুষের প্রায় ৩ ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ, বরগুনার বেতাগী এবং সর্ব শেষে আমতলী ফায়ার সার্ভিসেরমোট ৪টি  ইউনিটের ৩ ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ১২টি স্থাপনা আগুনে ভস্মীভূত হয়। এত ১৯ ব্যবসায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

এ ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই পৌর-প্যানেল মেয়র রইসুল আলম রিপনসহ সরকারি কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। আইন শৃংখলা বাহিনী পুলিশ সহ স্বেচ্ছা-সেবী সংগঠনের সদস্য ও কিছু সাধারণ মানুষ আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসকে সহযোগিতা করেন।