বরগুনায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ১৯৯ দোকান পুড়ে ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি


resma প্রকাশিত: ৮:৩৩ অপরাহ্ণ ১৮ মে , ২০২২
বরগুনায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ১৯৯ দোকান পুড়ে ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

এম আর অভি, বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনায় পৌর-সুপার মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। ১৯৯টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এ অগ্নিকান্ডে অন্তত ৩ শতাধিক ব্যবসায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।  এতে প্রায় ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে আশঙ্কা করছে ব্যবসায়ীরা।

মঙ্গলবার (১৭ মে) রাত অনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে শহরের পৌর সুপার মার্কেটে এ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডর ঘটনা ঘটে। দু থেকে আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ।

কয়েক জন ব্যবসায়ী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পৌর সুপার মার্কেটের পশ্চিম পাশের হোটেল বে-অফ বেঙ্গলের পিছনের দিকের কোন একটি দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। মুহূর্তের মধ্যে হঠাৎ আগুন আশপাশের দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের বরগুনা স্টেশনের কয়েকটি ইউনিট পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে।

গার্মেন্টস ও কসমেটিকের দোকোনে দার্হ্য পদার্থ থাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের প্রথমে হিমসীম খেতে হয়। পরে পটুয়াখালী থেকে আরও কয়েকটি ইউনিট এসে প্রায় দু -আড়াই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে অস্থায়ী হেল্প ডেস্ক স্থাপন করে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের তালিকা করেন সদর উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা (পিআইও ) মো. জিয়াউর রহমান।

তবে এ অগ্নিকান্ডে কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়ে তা এখনোও নিরুপন করতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স। তদন্তের মাধ্যমে ক্ষয়ক্ষতি নিরুপন করা হবে এমনটি জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস কর্র্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত স্থান পরিদর্শন করেছেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা ।

ভাষান ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মনিরুল ইসলাম মনির জানান , ২২২টি ঘর অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে । এতে প্রায় ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তিনি আরও জানান, অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীর এখনোও কোন ধরনের সহযোগীতা পায়নি।

ফায়ার সার্ভিস বরগুনার পরিচালক জাহাঙ্গীর আহম্মেদ বলেন,  বরগুনা ও পটুয়াখালীর ৬ টি স্টেশনের মোট আটটি ইউনিট কাজ করে দু থেকে আড়াই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রেণে এনেছে। আগুনের সূত্রপাত জানতে তদন্ত কমিটি করা হবে। তিনি আরও বলেন ,দোকানদারদের তথ্যে ধারনা করা হচ্ছে বৈদ্যূতিক শর্ট সার্কিটে আগুন লাগতে পারে । তবে তদন্ত সাপেক্ষে কমিটির মাধ্যমে আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।

বরগুনা সদর উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা (পিআইও ) মো. জিয়াউর রহমান বলেন , দোকান মালিক ও ভাড়াটিয়া সনাক্ত করে তাদের তাদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। প্রাথমিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে চাল বিতরণের প্রক্রিয়া চলছে।