লাতিন আমেরিকার বাজার নিয়ন্ত্রণে রেখেছে স্যামসাং


meherin প্রকাশিত: ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ ৩ মার্চ , ২০২২
লাতিন আমেরিকার বাজার নিয়ন্ত্রণে রেখেছে স্যামসাং

তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক : সর্বোচ্চ বাজার হিস্যা ও বছরওয়ারি প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে ২০২১ সালে লাতিন আমেরিকার স্মার্টফোন বাজার শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে স্যামসাং। কাউন্টারপয়েন্ট রিসার্চের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। খবর গিজমোচায়না।

কাউন্টারপয়েন্ট রিসার্চের তথ্যানুযায়ী, ২০২০ সালে লাতিন আমেরিকার স্মার্টফোন বাজার আগের বছরের তুলনায় সামগ্রিকভাবে ১৩ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়েছে। যদিও তা মহামারী-পূর্ব ২০১৯ সালের তুলনায় ৯ শতাংশ কম। সংস্থাটির প্রধান গবেষক টিনা লুর মতে, লাতিন আমেরিকার দেশগুলোয় চীনের উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রবেশ ও প্রতিযোগিতা বছরওয়ারি প্রবৃদ্ধি হার বাড়িয়েছে। তবে ব্রাজিলের টোটাল অ্যাড্রেসেবল মার্কেট (টিএএম) অনেকটা হ্রাস পেয়েছে। স্মার্টফোন বিক্রিতে দেশীয় উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ৮০ শতাংশ অবদান রেখেছে। যেখানে ব্রাজিল যন্ত্রাংশের সংকট পুরোপুরি অনুধাবন করেছে।

২০২১ সালে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান স্মার্টফোন বিক্রিতে প্রবৃদ্ধি দেখতে পেয়েছে। তবে বেশকিছু প্রতিষ্ঠানের বিক্রি উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। গত বছরের পুরোটা সময় স্যামসাং স্মার্টফোনের বাজার তাদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। আর্জেন্টিনা ও মেক্সিকো বাদে সব অঞ্চলেই প্রযুক্তি জায়ান্টটি তাদের শীর্ষাবস্থান ধরে রেখেছে। সরবরাহ সংকটের মধ্যেও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি জায়ান্টটি ভালো অবস্থানে ছিল। দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল মটোরোলা। বিশেষ করে আর্জেন্টিনা ও মেক্সিকোয় শীর্ষস্থান ধরে রাখার মাধ্যমে এ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

অন্যদিকে এলজি ইলেকট্রনিকস তাদের স্মার্টফোনের ব্যবসা গুটিয়ে নেয়ায় এন্ট্রি লেভেলে শূন্যতা তৈরি হয়েছিল। অন্যান্য প্রতিষ্ঠান সুযোগটি কাজে লাগায়। এ অঞ্চলে দিন দিন আরো চীনা প্রতিষ্ঠান প্রবেশ করছে।ফলে প্রতিযোগিতাও বাড়ছে। প্রযুক্তিবিদরা জানান, চীনা প্রতিষ্ঠানের প্রভাবে জায়ান্টরা তাদের অবস্থান কতটা ধরে রাখতে পারবেন, সামনের প্রান্তিকগুলোয় তার প্রতিফলন ঘটবে।