শৈলকুপায় নানা আয়োজনে নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ


resma প্রকাশিত: ২:৪০ অপরাহ্ণ ২ মার্চ , ২০২২
শৈলকুপায় নানা আয়োজনে নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ

মাসুম শাহরিয়ার, শৈলকুপা,ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সারাদেশের ন্যায় নতুন শিক্ষার্থীদের আনাগোনায় যেন শিক্ষাঙ্গণে চাঞ্চল্যময় প্রাণ ফিরেছে। কলেজের প্রথম দিনে নবীনদের চোখে ছিল খুশির আবেগী ঝিলিক । সবকিছু ছাপিয়ে প্রাণ চঞ্চল ছিল সকল ক্যাম্পাসের ক্লাসরুম থেকে শুরু করে সকল অঙ্গিনাগুলো ।

বুধবার (০২ ফেব্রুয়ারি) সারা বাংলাদশে মতো শেখপাড়া দুঃখী মাহমুদ কলেজ উচ্চ মাধ্যমিকের শিক্ষা-কার্যক্রমের উদ্বোধনী ও নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে । কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকের তিনটি শাখায় ও ব্যবসায় ব্যবস্থাপনার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা সকলকে কলেজের আইডি কার্ড বিতরণ, রজনীগন্ধ, গোলাপফুল ও বিভিন্ন শিক্ষা সামগ্রী দিয়ে বরণ করে নিয়েছে নবীন শিক্ষার্থীদের । এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপাধ্যক্ষ মশিউর রহমান তাজু, রবিউল ইসলাম লাভলু, ইসমত আরা সুইটি, শাহনাজ খানম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রধান মতিউর রহমান, ইসলামের ইতিহাসের প্রধান শহিদুল ইসলাম, নিরপুমা নাজনিন লিসা, নজরুল ইসলাম, আশরাফুল ইসলাম, এম এ কবির ও মাসুদুজ্জামান লিটনসহ অনেকে।

কলেজ জীবনের প্রথম দিনের অনুভূতি জানিয়ে শেখপাড়া দুঃখী মাহমুদ কলেজের উচ্চ মাধ্যমিকের শিক্ষার্থী নাহিদ হাসান, কৈশিকুর রহমান, রাশেদ আহমেদ বলেন, দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছর করোনাভাইরাসের টানা সংক্রমণের আমরা কলেজ জীবনে পদাচারণা করলাম । আজকের দিনটি আমাদের জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও স্মরণীয় হয়ে থাকবে । প্রথমে ভয়ে শঙ্কিত ছিল নতুন দিন কেমন হবে! কিন্তু এসে আমার সম্পূর্ণ ভিন্ন আয়োজন দেখতে পেলাম । এই কলেজের শিক্ষক ও অন্যান্য শিক্ষার্থীরা খুবই আন্তরিক । সব মিলিয়ে শেখপাড়া দুঃখী মাহমুদ কলেজে পড়তে পেরে খুবই ভালো লাগছে ।

তারা আরও বলেন, আমার প্রথম থেকেই আশা নির্ধারণ ছিল দুঃখী মাহমুদ কলেজে পড়াশোনা করবো । আজ আমার সেই আশা পূরণ হয়েছে । আজ শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নান্দনিক অভ্যর্থনা পেয়ে সুন্দর খুব আনন্দ লাগছে । সত্যি বলতে কলেজটি যেমন উপজেলায় সেরা কলেজ তেমনি এই কলেজের সকলে আন্তরিক ।

কলেজের অধ্যক্ষ আসাদুর রহমান শাহিন বলেন, শেখপাড়া দুঃখী মাহমুদ কলেজের আজকের এই নবীনবরণ অনুষ্ঠানে আমাদের সর্বোচ্চ ভালোবাসা ও আন্তরিকতা দিয়ে সকলের জন্য অভ্যর্থনার আয়োজন করেছি । সকলকে ধৈর্য ধরে সময় নিয়ে জীবনে অনেক বড় হওয়ার অনুরোধ করেছি । মা বাবার মতো সর্বদা আমাদের কলেজের শিক্ষকরা তাদের সাথে আন্তরিকতার সম্পর্ক বজায় রাখবে । আজ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সঙ্গ অনেক অভিভাবকের উপস্থিতিও আমরা দেখতে পেরেছি কলেজে । তাদের এই সূচনা পর্বের উৎসাহ-উদ্দীপনা আমাকে মুগ্ধ করেছে । সকলের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা ।